প্রচ্ছদ > ক্যারিয়ার > চাকরিদাতারা বলেন > নতুনদের অনেক সুযোগ আছে
নতুনদের অনেক সুযোগ আছে

নতুনদের অনেক সুযোগ আছে

 

 

স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেড এইচ আর ম্যানেজার মোনামী হক

স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেড এইচ আর ম্যানেজার মোনামী হক

দেশের অন্যতম নামকরা প্রতিষ্ঠান স্কয়ার টয়লেট্রিজ। চাকরিপ্রার্থীর পছন্দের তালিকায় এ কম্পানিটি বেশ ওপরে। যাঁরা এ কম্পানিতে যোগ দিতে চান তাঁরা সাইটটি ভিজিট করতে পারেন www.square-bd.com এবং জমা দিয়ে রাখতে পারেন আপনার সিভি। প্রার্থীর যোগ্যতা, আবেদনের নিয়ম, আবেদনপত্র বাছাই, প্রার্থী নির্বাচন প্রক্রিয়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেড মানবসম্পদ বিভাগের প্রধান (এইচ আর ম্যানেজার) মোনামী হকের সঙ্গে কথা বলেছেন সাবিহা নীপা

আপনাদের এখানে কোন প্রার্থী আবেদন করতে চাইলে কী করতে পারে?
আমাদের নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট রয়েছে। যেখানে প্রার্থী তাঁর সিভি দিয়ে রাখতে পারেন। নানা সময় নানা পদ খালি হয়। তখন আমরা ওই সব সিভি থেকে প্রার্থী বাছাইয়ের চেষ্টা করি। যোগ্য কারো সিভি না পেলে বিজ্ঞপ্তি দিই।

আবেদনপত্র বাছাই প্রক্রিয়া কী?
যেসব আবেদনপত্রে আমাদের চাহিদা অনুযায়ী সব যোগ্যতা থাকে প্রথমে আমরা সেগুলো বাছাই করি। যেমন অনেক সময় দেখা যায়, আমরা দুই বছরের অভিজ্ঞতা চাই। সে ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা যথেষ্ট ভালো হলেও অভিজ্ঞতা না থাকায় আমরা আবেদনপত্রটি বাতিল করতে বাধ্য হই। আবার যে পদটিতে একজন মার্কেটিংয়ের ছাত্র প্রয়োজন, সে পদটির জন্য ফিজিক্সের কোনো প্রার্থী আবেদন করলে সেটি বাতিল করতে বাধ্য হই।

 

আবেদনপত্র বাছাইয়ের পরবর্তী প্রক্রিয়া কেমন?
আবেদনপত্র প্রাথমিক বাছাইয়ের পর আমরা ইন্টারভিউ কার্ড পাঠাই। তবে এ ক্ষেত্রে এটা ঠিক যে আমরা সবাইকে ইন্টারভিউ কার্ড পাঠাই না। যাঁরা একটু বেশি যোগ্যতাসম্পন্ন; আমরা তাঁদেরই ইন্টারভিউ কার্ড পাঠাই, যেমন যাঁদের রেজাল্ট তুলনামূলক ভালো, যাঁদের অভিজ্ঞতা বেশি (যদি চাওয়া হয়ে থাকে) ইত্যাদি দেখে আমরা ইন্টারভিউ কার্ড পাঠাই।

 
নির্বাচন প্রক্রিয়া কী ধরনের?
এক্সিকিউটিভি পদের জন্য সাধারণত আমরা প্রথমে ভাইভা নিই। তারপর একটা প্রিলিমিনারি সিলেকশনের পর শর্ট লিস্ট করা হয়। তখন সেই শর্ট লিস্ট থেকে প্রার্থী নির্বাচন করা হয়। আর নন-এক্সকিউটিভি পোস্টের জন্য প্রথমে লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয়। তারপর ভাইভা নেওয়া হয়। আবার কম্পিউটার রিলেটেড পদগুলোর জন্য লিখিত পরীক্ষা কম্পিউটারেই নেওয়া হয়।

 
লিখিত পরীক্ষায় কী ধরনের প্রশ্ন থাকে?
লিখিত পরীক্ষায় প্রার্থীর তাত্ত্বিক জ্ঞান যাচাই করা হয়ে থাকে। সংশ্লিষ্ট পদের চাহিদা প্রার্থী কতটুকু পূরণ করতে পারবেন, সে বিষয় যাচাই করার জন্য বেসিক কিছু প্রশ্ন করা হয়। এ ছাড়া সাধারণ জ্ঞান, কম্পিউটার নানা বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়ে থাকে।

 
ভাইভার প্রশ্নগুলো কেমন হয়?
প্রার্থীর আচরণ, আত্মবিশ্বাস, কঠোর পরিশ্রম করার ক্ষমতা ইত্যাদি যাচাইয়ের জন্য নানা রকম প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। আমাদের একটি অভিজ্ঞ ভাইভা বোর্ড রয়েছে। যারা নানা আঙ্গিকে প্রশ্ন করে প্রার্থীর সবদিক যাচাই করে। প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা, টিমের সঙ্গে কাজ করার ইচ্ছা আছে কি না- সেসব দেখা হয়।

 
নতুনদের আসার কোনো সুযোগ আছে কি?
আমাদের এখানে নতুনদের জন্য অনেক সুযোগই রয়েছে। আমরা সব পদের জন্য অভিজ্ঞতা চাই না। ভালো একাডেমিক রেজাল্ট, কাজের প্রতি আগ্রহ এবং যেখানে সে কাজ করতে চান, সে ক্ষেত্রে প্রচুর জ্ঞান থাকলে আমরা তাঁকে নিয়ে নিই। আমাদের এখানে এমন অনেকেই কাজ করেন, যাঁদের এটাই প্রথম চাকরি।

 

নতুনরা নিজেদের কিভাবে তৈরি করতে পারে?
প্রথমেই একজনকে জানতে হবে তিনি কোন পেশায় কাজ করতে চান। তারপর তাঁকে সেভাবে তার পরিচয়ের পরিধি বাড়াতে হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও একটি জরুরি বিষয়। কোন প্রতিষ্ঠান থেকে কী ধরনের রেজাল্ট নিয়ে একজন প্রার্থী পাস করছেন, এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। ভালো রেজাল্টও জরুরি। সর্বোপরি যে ক্ষেত্রে কাজ করতে চান সে ক্ষেত্রে ভালো জ্ঞান থাকা দরকার। কেননা, নতুনদের ইন্টারভিউয়ে ভালো করাটা খুব জরুরি। আর এ জন্য তাত্ত্বিক জ্ঞান খুব প্রয়োজন।

 
চূড়ান্ত নিয়োগের ক্ষেত্রে একজন প্রার্থীর কোন দিকগুলোতে জোর দেওয়া হয়?
এ ক্ষেত্রে প্রার্থীর সব কিছুই দেখা হয়। প্রার্থীর বয়স, তার অভিজ্ঞতা, কাজের আগ্রহ ইত্যাদি। এ ক্ষেত্রে প্রার্থী টিমওয়ার্কে কতটা পারদর্শী তাও দেখা হয়ে থাকে। প্রার্থীর ধারণ করার ক্ষমতা, সাধারণ জ্ঞান- সবকিছু গুরুত্বসহকারে দেখা হয়ে থাকে।

 
সার্টিফিকেট বা ইন্টারভিউয়ের মধ্যে কোনটি বেশি জরুরি?
দুটোই জরুরি। ভালো রেজাল্ট খুবই দরকার। এ ক্ষেত্রে শুধু পুঁথিগত বিদ্যা নয়। থাকতে হবে ব্যবহারিক জ্ঞান। আর শুধু জ্ঞান থাকলেই চলবে না, ইন্টারভিউতে সেটি প্রকাশও করতে হবে।

 

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*