প্রচ্ছদ > শিক্ষা > স্কলারশিপ > সুইডিশ ইনস্টিটিউট ও ভারত সরকারের স্কলারশিপ
সুইডিশ ইনস্টিটিউট ও ভারত সরকারের স্কলারশিপ

সুইডিশ ইনস্টিটিউট ও ভারত সরকারের স্কলারশিপ

বাংলাদেশিসহ বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তির ঘোষণা দিয়েছে সুইডিশ ইনস্টিটিউট ও ভারত সরকারের ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশনস (আইসিসিআর)। জেনে নিন দুটো স্করারশিপের তথ্য

 

সুইডিশ ইনস্টিটিউট স্কলারশিপ
কী বৃত্তি : সুইডেনে ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের শরত্কালীন সেমিস্টারে পড়ার জন্য বৃত্তি।
কারা দেবে : সুইডিশ ইনস্টিটিউট।
কারা পাবে : প্রতিবছর সুইডেনে পড়াশোনা ও গবেষণা করতে ইচ্ছুক প্রায় ৫০০ শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দেওয়া হবে। এই বৃত্তির জন্য কোনো নির্দষ্টি বয়সসীমা নেই। তবে এর আগে কোনো সুইডিশ বৃত্তি পেয়েছেন বা সুইডেনের কোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি আছে এমন শিক্ষার্থীরা বৃত্তির জন্য বিবেচিত হবেন না।
সুযোগ-সুবিধা : বৃত্তিপ্রাপ্তরা পড়াশোনা এবং থাকা-খাওয়ার জন্য মাসিক ৯ হাজার সুইডিশ ক্রোনা পাবেন। এ ছাড়া যাতায়াত খরচ বাবদ এককালীন ১৫ হাজার সুইডিশ ক্রোনা দেওয়া হবে।
কী কী লাগবে : বৃত্তির জন্য আবেদনের আগেই আগ্রহের বিষয়টি বাছাই করে নিতে হবে। একজন সর্বোচ্চ চারটি বিষয়ের জন্য আবেদন করতে পারবেন। বৃত্তির আবেদনপত্রের সঙ্গে দিতে হবে সর্বোচ্চ তিন পৃষ্ঠার জীবনবৃত্তান্ত এবং কেন বৃত্তিটি পেতে আগ্রহী সে বিষয়ে একটি রচনা।
আবেদনের শেষ সময় : আবেদনের শেষ সময় ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪।
আবেদনের ঠিকানা : বিস্তারিত তথ্যের জন্য দেখতে পারেন www.studyinsweden.se/Scholarships।

 

ভারত সরকারের শিক্ষাবৃত্তি
কী বৃত্তি : ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক, স্নাতকোত্তর ও পিএইচডি পর্যায়ে পড়ার জন্য ভারত সরকারের শিক্ষাবৃত্তি।
কারা দেবে : ভারত সরকারের ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশনস (আইসিসিআর)।
কারা পাবে : প্রার্থীদের ৬০ শতাংশ নম্বর অথবা জিপিএ ৫-এর স্কেলে ন্যুনতম ৩ থাকতে হবে। ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা থাকা আবশ্যক।
সুযোগ-সুবিধা : মেডিসিন ছাড়া যেকোনো কোর্সে আবেদন করা যাবে। বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা তিন ধরনের বৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন। এগুলো হলো বাংলাদেশ স্কলারশিপ স্কিম, কমনওয়েলথ স্কলারশিপ স্কিম ও ইন্ডিয়া স্কলারশিপ স্কিম।
কী কী লাগবে : পূরণকৃত আবেদনপত্রের সঙ্গে দিতে হবে সম্প্রতি তোলা ছবি, শিক্ষাগত সনদপত্রের কপি, পাসপোর্টের প্রতিলিপি, মেডিক্যাল সনদপত্র ও রেফারেন্স লেটার। এসব কাগজপত্র মোট ছয়টি সেটে জমা দিতে হবে ঢাকার গুলশানের ইন্দিরা গান্ধী কালচারাল সেন্টারে। চট্টগ্রাম ও রাজশাহীর আবেদনকারীরা সেখানকার অ্যাসিসট্যান্ট হাইকমিশন অব ইন্ডিয়াতে জমা দিতে পারেন।
আবেদনের শেষ সময় : আবেদনপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় ২৩ জানুয়ারি, ২০১৪।
আবেদনের ঠিকানা : বিস্তারিত তথ্য এবং আবেদনপত্র ডাউনলোডের জন্য http://www.hcidhaka.gov.in ওয়েবসাইটে লগইন করতে হবে।

Share and Enjoy !

0Shares
0 0

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*