অফিস ম্যানারস

অফিস ম্যানারস

পোশাক
অনেক অফিসে পোশাকের বিষয়ে লিখিত বা অলিখিত নিয়ম থাকে, সেভাবে পোশাক পরিধান করুন। কেননা আপনার পোশাক শুধু আপনাকেই নয়, তা পুরো অফিসের ভাবমূর্তিকে তুলে ধরে।

সময়নিষ্ঠ হোন
সব কাজে ও মিটিংয়ে সময়মতো উপস্থিত থাকুন। প্রায়ই দেরি হতে থাকলে তা আপনার ভাবমূর্তিকে নষ্ট করে দেবে।

সম্মান করতে হবে
যার যে অবস্থান তাকে সে অনুযায়ী সম্মান দিতে হবে। কোনো কর্মী যত নিচু পদেরই হোক না কেন তাকে মানুষ হিসেবে যে সম্মান তার ব্যত্যয় করা যাবে না।

বিনয়ী হোন
সবার সঙ্গে বিনয়ী আচরণ করুন। শুভেচ্ছা
বিনিময় করুন। কখনো ধন্যবাদ দিতে ভুলবেন না।

শারীরিক দূরত্ব মেনে চলুন
কারো শারীরিকভাবে খুব কাছাকাছি যাবেন না। কেউ এলে ও আপনি বিব্রত হলে তখনই বিনয়ের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখতে বলুন।

কারো সাফল্যে হিংসা নয়
কারো সাফল্যে হিংসা না করে নিজে এ রকম বা এর চেয়েও ভালো সাফল্য অর্জনের পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন করুন। নিজের কাজের ক্ষতি না করে একে অপরের সহযোগিতা করুন। তাহলে সবাই আরো বেশি সফল হতে পারবেন।

চাকরিবিধি
প্রতিটি অফিসের সুনির্দিষ্ট কিছু চাকরিবিধি থাকে, তা পড়ুন ও মেনে চলুন।

দীর্ঘক্ষণ ফোনালাপ নয়
অফিসে দীর্ঘক্ষণ ধরে ফোনালাপ অফিসের কাজে ব্যাঘাত সৃষ্টি করে। টেলিফোন ও ই-মেইল সহবত মেনে চলুন।

সুগন্ধি ব্যবহার
আপনার শরীর দুর্গন্ধমুক্ত রাখুন। হালকা ধরনের বডি স্প্রে বা সুগন্ধি ব্যবহার করতে পারেন। তীব্র গন্ধ অনেকের কাছে বিরক্তিকর।

ডেস্ক গুছিয়ে রাখুন
আপনার ডেস্ক দেখে মানুষ আপনার সম্পর্কে ধারণা পায়। এ ছাড়া কোনো জিনিস যদি আপনাকে খুঁজে খুঁজে বের করতে হয়, তবে তা অন্যের কাছে বিরক্তিকর হতে পারে। তাই গুছিয়ে রাখুন।

গোপনীয়তা
গোপনীয়তার নীতি মেনে চলুন। এ ছাড়া না বলে অন্যের জিনিস ও কম্পিউটার নাড়াচাড়া করবেন না। তা ছাড়া অফিসে পরচর্চা করা, মিথ্যা বলা, কিরা বা শপথ করে কথা বলা, টাকা ধার করা থেকে নিজেকে বিরত রাখুন।

Comments

comments

Comments are closed.