প্রচ্ছদ > স্বাস্থ্য > বিশেষজ্ঞ পরামর্শ > ইবোলা ভাইরাসে আক্রান্ত হলে করণীয়
ইবোলা ভাইরাসে আক্রান্ত হলে করণীয়

ইবোলা ভাইরাসে আক্রান্ত হলে করণীয়

ইবোলা ভাইরাস এই মূহুর্তে এক বড় আতঙ্কের নাম। এটি প্রতিরোধে চাই সচেতনতা। উপদ্রুত কোনো দেশ থেকে দেশে প্রবেশকারী ব্যক্তিদের শারীরিক পরীক্ষা করাটা জরুরি। তাদের মাধ্যমে আমাদের দেশেও ছড়াতে পারে এ ভাইরাস।
প্রতিদিন দুই বেলা ডিজিটাল থার্মোমিটারে রোগীকে নিজ শরীরের তাপমাত্রা যাচাই করতে হবে| শরীরের তাপমাত্রা ১০০ দশমিক ৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট (৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বা আরও বেশি হলে জরুরি স্বাস্থ্য বিভাগে যোগাযোগ করতে হবে|
সংক্রমণের দুই থেকে ২১ দিনের মধ্যে রোগীর শরীরে যেসব উপসর্গ দেখা যায়:
* জ্বর
* মাথাব্যথা
* ডায়রিয়া
* বমি
* পাকস্থলীতে ব্যথা
* অজ্ঞাত কারণে রক্তপাত বা কালশিটে পড়া
* মাংসপেশিতে ব্যথা

তিন সপ্তাহ ধরে স্থায়ী জ্বর, মাথাব্যথা ও শরীরব্যথার ব্যাপারে রোগীদের সতর্ক থাকতে হবে|
ইবোলার সংক্রমণ বন্ধ করতে হলে আক্রান্ত ব্যক্তিকে দ্রুত শনাক্ত ও পরীক্ষা করা জরুরি|
আক্রান্ত ব্যক্তিকে আলাদা রাখতে হবে। সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের তিন সপ্তাহ পর্যবেক্ষণ করতে হবে|
স্বাস্থ্যকর্মীদের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। বন্য প্রাণীর মাংস খাওয়া থেকে সম্ভাব্য আক্রান্তদের বিরত থাকতে হবে|

সূত্র: সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন/লাইভসায়েন্স|

 

Ebola virus disease Cause

Comments

comments

Comments are closed.