প্রচ্ছদ > তথ্যপ্রযুক্তি > জেনে রাখুন > মোবাইল চুরি ঠেকাবে ‘কিল সুইচ’
মোবাইল চুরি ঠেকাবে ‘কিল সুইচ’

মোবাইল চুরি ঠেকাবে ‘কিল সুইচ’

স্মার্টফোন চুরি হয়ে গেলে বা হারিয়ে গেলে বেশি দুশ্চিন্তা থাকে ফোনটির অপব্যবহার নিয়ে। মোবাইল ফোন চালু রাখা ও বন্ধ রাখার প্রযুক্তি রয়েছে। কিন্তু দূর থেকে মোবাইল ফোন অকেজো করে ফেলার কার্যকর কোনো পদ্ধতি নেই। যে কারণেই এ দুশ্চিন্তা। মোবাইল ফোন চুরি ঠেকাতে গুগল ও মাইক্রোসফট তাদের অ্যান্ড্রয়েড ও উইন্ডোজ ফোন অপারেটিং সিস্টেমে ‘কিল সুইচ’ নামে বিশেষ ফিচার যুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে। বিবিসির এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে। কিল সুইচ নামের এ ফিচারটির সাহায্যে চুরি যাওয়া স্মার্টফোন দূর থেকে অকেজো করে দেওয়া যাবে অর্থাত্ চুরি করা ফোনটি আর কোনো কাজে লাগানো যাবে না।

দীর্ঘদিন ধরেই যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে মোবাইল ফোন চুরি ঠেকাতে কিল সুইচ যুক্ত করার জন্য মোবাইল প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে অনুরোধ করে আসছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। মোবাইল ফোন নির্মাতা অ্যাপল ও স্যামসাং তাদের কিছু ফোনে এ ধরনের ফিচার যুক্ত করেছে। বাজার বিশ্লেষকেরা বলছেন, গুগল ও মাইক্রোসফট ‘কিল সুইচ’ ফিচার আনলে বিশ্বের জনপ্রিয় তিনটি অপারেটিং সিস্টেমেই চুরি করা ফোন অকেজো করে দেওয়ার প্রযুক্তিটি থাকবে।
বর্তমানে সারা বিশ্বেই মোবাইল ফোন চুরি একটি বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৩ সালে দেশটিতে ৩১ লাখ মোবাইল ফোন চুরি হয়েছে, যা ২০১২ সালের তুলনায় দ্বিগুণ। ২০১৩ সালে প্রতি তিনজন ইউরোপিয়ানদের মধ্যে অন্তত একজনের মোবাইল চুরি হয়েছে বা মোবাইল হারানোর ঘটনা ঘটেছে। দক্ষিণ কোরিয়ায় ২০০৯ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে মোবাইল চুরি পাঁচ গুণ বেড়েছে। কলম্বিয়াতে ২০১৩ সালে ১০ লাখের বেশি মোবাইল চুরির ঘটনা ঘটেছে। এ ধরনের চুরির ঘটনা ঠেকাতে নীতিনির্ধারকেরা ‘সিকিউর আওয়ার স্মার্টফোন’ নামের একটি উদ্যোগ নেন। এই উদ্যোগের অংশ হিসেবে মোবাইল ফোন চুরি ঠেকাতে প্রযুক্তি উদ্ভাবনী প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে অনুরোধ করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক স্টেটের অ্যাটর্নি জেনারেল এ প্রসঙ্গে বলেন, কিল সুইচের ব্যবহার স্মার্টফোনকে চোরের কাছে মূল্যহীন করে তুলবে। এ ফিচারটির সাহায্যে চুরি যাওয়া স্মার্টফোনটিকে অকেজো করে দেওয়া যাবে। ফলে এর আর কোনো দাম থাকবে না।
অবশ্য কিল সুইচের বিপরীতে দুর্বৃত্তরা আলাদা কোনো উপায় বের করে ফেলতে পারে বলেও আশঙ্কা করছেন প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা। তবে কিল সুইচ ফিচার যুক্ত করার উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন তাঁরা। পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ফ্রস্ট অ্যান্ড সুলিভানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোজ মেনন মনে করেন, এটি সঠিক একটি উদ্যোগ। যদিও এই উদ্যোগ নিয়ে ফোন চুরি পুরোপুরি ঠেকানো সম্ভব নয়। তার পরও এতে চুরি করা ফোন কাজে লাগানো অসম্ভব হবে।

Share and Enjoy !

0Shares
0 0 0

Comments

comments

Comments are closed.