প্রচ্ছদ > তথ্যপ্রযুক্তি > দরকারি ফিচার > চার্জ থাকে না স্মার্টফোনে?
চার্জ থাকে না স্মার্টফোনে?

চার্জ থাকে না স্মার্টফোনে?

ধরুন, আপনার ব্যবহার করা স্মার্টফোনটি দিয়ে ডাটা স্থানান্তর করছেন। ঠিক সেই মুহুর্তে স্মার্টফোনটি বন্ধ হয়ে গেল। কেমন হবে? অথবা ধরুন আপনার প্রিয়জনের সঙ্গে ফেসবুকে চ্যাট করছেন, ঠিক ওই সময় আপনার ফোনটি বন্ধ হয়ে গেল। কেন আপনার স্মার্টফোনটি হঠাৎ করে মধ্য দুপুরে বন্ধ হয়ে যায়? হঠাৎ করে বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে কিছু মোবাইল অ্যাপস দায়ী বলে এক গবেষণায় জানা গেছে। বিস্তারিত জানাচ্ছেন রায়হান আশরাফী

 
স্মার্টফোনের স্ক্রিনে অতিরিক্ত আলো, অতিরিক্ত উষ্ণতায় স্মার্টফোন রাখা এবং বেশি বেশি ওয়্যারল্যাস সংযোগ (যেমন, জিপিএস, ব্লু টুথ) স্মার্টফোন ব্যাটারির চার্জ বেশি ক্ষয় করে। তবে ব্যাটারির চার্জ তাড়াতাড়ি শেষ হওয়ার প্রধান কারণ হচ্ছে, বিভিন্ন অ্যাপস ও অ্যাডস, যা স্মার্টফোনের ভেতরে ভেতরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তথ্য দিতে থাকে আপনার ডিভাইসগুলোতে।
নতুন প্রকাশিত ওই গবেষণায় দেখা যায়, মাইক্রোসফটের জনপ্রিয় অ্যাপস আউটলুক এবং কিং, ক্যান্ডি ক্র্যাশ স্যাগাও চার্জক্ষয়ী ১০টি অ্যাপসের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত।

চার্জক্ষয়ী ১০ টি অ্যাপস হলো-
১. ক্যান্ডি ক্র্যাশ স্যাগা
২. ফ্রোট নিঞ্জা
৩. রেসিং মটো
৪. ইমো ফ্রি ভিডিও কলস অ্যান্ড টেক্সট
৫. ট্যাম্পল রান ২
৬. জেলো পিটিটি ওয়াকি-টকি
৭. ভিকি ফ্রি টিভি
৮. ইজেড ওয়েদার ফোরক্যাস্ট অ্যান্ড উইডজ
৯. আউটলুক ডট কম
১০. ক্যামেরা ৩৬০ আল্টিমেট

উল্লেখিত অ্যাপসগুলো সবচেয়ে বেশি চার্জ ক্ষয় করে। অনেক সময় ব্যাটারির জন্য খুব‌ই ক্ষতিকর এবং ফোনের জন্য তো নিশ্চয়ই। তবে স্মার্টফোনে ব্যাটারির চার্জ ধরে রাখতে সাহায্য করবে এমন কিছু সুপারিশ করা হয়েছে-

স্কিনের আলো কমিয়ে রাখা
স্মার্টফোন স্ক্রিনের আলো সব সময় কমিয়ে রাখুন। প্রয়োজনে স্ক্রিনের আলো যেন কাজের শেষে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যায় সেজন্য সময় সেট করে রাখুন।

অব্যবহৃত ওয়ারলেস সংযোগ বন্ধ রাখুন
যদি প্রয়োজন মনে না করেন, তাহলে ওয়ারলেস সংযোগগুলো বন্ধ রাখতে পারেন। সেগুলো হলো- জিপিএস, ব্লু টুথ, এনএফসি এবং ওয়াই-ফাই। এছাড়া সেলুল্যার সংযোগসহ সব ধরনের যোগাযোগ বিছিন্ন করে রাখতে হবে।

নোটিফিকেশন বন্ধ রাখতে হবে
ইমেইল ও সামাজিক মাধ্যমসহ সব ধরনের নোটিফিকেশন বন্ধ রাখতে হবে। প্রয়োজনীয় সময় ছাড়া এগুলো বন্ধ রাখতে হবে।

ওয়াই-ফাইয়ের চেয়ে সেলুলার ভাল
যদি অনলাইন সংযোগ দরকার হয়, তবে ওয়াই-ফাইয়ের চেয়ে সেলুল্যার সংযোগ ভাল। সেলুলার সংযোগ সব জায়গায় খুব কম চার্জ ক্ষয় করে।

অপ্রয়োজনীয় ডাউনলোড থেকে বিরত থাকুন
এছাড়া কিছু অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস ডাউনলোড থেকে বিরত থাকতে হবে। আর এমন কিছু অ্যাপস আছে যেগুলো অন্য অ্যাপস থেকে কম চার্জ ক্ষয় করে, সেগুলো ব্যবহার করা যেতে পারে।
সম সময় মোবাইল লক করা
মোবাইলে কল ও টেক্সট গ্রহণ করা যায় -এমন অবস্থায় রেখে সব সময় লক করে রাখুন।

বেশি ভিডিও দেখা থেকে বিরত থাকুন
স্মার্টফোনের ব্যাটারির চার্জ সবচেয়ে বেশি ক্ষয় হয় যখন আপনি ভিডিও দেখেন। সুতরাং যত পারেন কম ভিডিও দেখুন। এছাড়া অনেকগুলো কাজ একসাথে করলে চার্জ ক্ষয় হয় যা ব্যাটারির অল্প সময়ে নষ্ট করতে সাহায্য করে যেমন, গান শোনার পাশাপাশি অনলাইন ব্যবহার করা।

অ্যাপস বন্ধ করা হয়েছে নিশ্চিত হন
আপনি কোনো অ্যাপস ব্যবহার করলেন, ব্যবহার শেষ করার পর ওই অ্যাপস বন্ধ করেছেন কি না নিশ্চিত হন। কারণ কোনো অ্যাপস যদি সঠিকভাবে বন্ধ না করা হয়, তাহলে তা ভেতরে ভেতরে চলতে থাকে। যা ব্যাটারির চার্জ ক্ষয় করে।

আপনার বাসার তাপমাত্রায় উপযুক্ত কি না
যদি ফোনের ব্যাটারি ভাল রাখতে চান, তবে স্মার্টফোনটিকে অতি শীতল এবং অতি উষ্ণ কোনো জায়গায় রাখবেন না। জেনে রাখবেন, আপনার গৃহের স্বাভাবিক তাপমাত্রাই স্মার্টফোনের জন্য উপযুক্ত।

আপডেট সফটওয়্যার
সফটওয়্যারগুলো আপডেট রাখুন। কারণ আপডেট সফটওয়্যার স্মার্টফোন ব্যাটারির চার্জ ধরে রাখতে সাহায্য করে। এছাড়া আপডেট সফটওয়্যার স্মার্টফোনের শক্তি ব্যবস্থাপনাকেও কার্যকর রাখে।

 

Share and Enjoy !

0Shares
0 0

Comments

comments

Comments are closed.