প্রচ্ছদ > তথ্যপ্রযুক্তি > জেনে রাখুন > ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকায় ই-কমার্স মেলা
২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকায় ই-কমার্স মেলা

২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকায় ই-কমার্স মেলা

দেশের অনলাইন কেনাকাটার বাজার সম্প্রসারণ ও তরুণ উদ্যোক্তাদের অর্থনৈতিক প্রচেষ্টাকে এগিয়ে নিতে আয়োজন করা হয়েছে ই-কমার্স মেলার। ‘ক্লিকের ছোঁয়ায় বাণিজ্য’ স্লোগান নিয়ে রাজধানীর শাহবাগের পাবলিক লাইব্রেরি প্রাঙ্গণে আগামী ২৫-২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিন দিনব্যাপী এ মেলার আয়োজন করেছে কম্পিউটার জগৎ। ২৫ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় এ মেলার উদ্বোধন করবেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি এবং খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এমপি।
এবারের মেলায় আরো বেশি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্য এবং সেবা প্রদর্শনের সুযোগ পাবে। এসবের পাশাপাশি এবারের মেলায় থাকছে গিগাবাইট গেমিং জোন এবং ই-কমার্স বিষয়ক সেমিনার। মেলায় উদ্বোধনী দিন জাতীয় মহিলা সংস্থার আয়োজনে ‘তথ্যআপা প্রকল্প’ ও এর ওয়েবসাইট উদ্বোধন করা হবে।
তিন দিনব্যাপী ই-কমার্স মেলার তত্ত্বাবধানে রয়েছে বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ডিপার্টমেন্ট অব পাবলিক লাইব্রেরি। মেলায় ৩৪টি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান স্টলের বরাদ্দ পেয়েছে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা চলবে।
ই-কমার্স মেলাকে সামনে রেখে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে মেলার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন মেলার আহ্বায়ক আব্দুল ওয়াহেদ তমাল, কম্পিউটার জগৎ-এর সহকারী সম্পাদক মোহাম্মদ আব্দুল হক এবং ‘এখানেই ডটকম’-এর পরিচালক আরিল্ড ক্লোক্করহৌগ।
মেলার আহবায়ক আব্দুল ওয়াদুদ তমাল বলেন, কম্পিউটার জগৎ বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে নানা উদ্যোগ হাতে নিয়েছে। ই-কমার্স খাতের প্রসারে গত বছরও মেলার আয়োজন করা হয়েছিল। দেশের বিভিন্ন বিভাগীয় ও জেলা শহরে এখন পর্যন্ত পাঁচটি মেলার আয়োজন করা হয়েছে। তিনি বলেন, এবারের ই-কমার্স মেলায় ডিরেক্টরি প্রকাশ করা হচ্ছে। এতে ই-কমার্স খাতের সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের তথ্য থাকবে।
কম্পিউটার জগৎ-এর সহকারী সম্পাদক মোহাম্মদ আব্দুল হক বলেন, ই-কমার্স বাংলাদেশে ইতিমধ্যে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ঈদে অনলাইন কেনাকাটা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। এবার রমজানের ঈদেও শতকোটি টাকার অনলাইন কেনাকাটা হয়েছে।
আব্দুল হক বলেন, তরুণ সমাজই ই-কমার্স খাতকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। বর্তমানে যেসব ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান দেশে রয়েছে তার বেশিরভাগই তরুণ উদ্যোক্তাদের প্রতিষ্ঠিত। ই-কমার্স মেলা বিশেষভাবে তরুণ উদ্যোক্তাদের প্রচেষ্টাকে সামনে তুলে ধরতে চায়। একইসঙ্গে সরকারসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সেতুবন্ধন গড়ে তোলা, যাতে এ খাত দ্রুত গতিশীল প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে পারে। সংবাদ সম্মেলনে মেলার আয়োজকরা জানান, উদ্বোধনী দিন সন্ধ্যা ৭টায় তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিশেষ অবদানের জন্য ১৬ জনকে কম্পিউটার জগৎ-এর পক্ষ থেকে সম্মাননা দেওয়া হবে।

Comments

comments

Comments are closed.