প্রচ্ছদ > জেনে নিন > বিসিএস প্রিলিমিনারি সহায়ক বইপত্র
বিসিএস প্রিলিমিনারি সহায়ক বইপত্র

বিসিএস প্রিলিমিনারি সহায়ক বইপত্র

রায়হান আহমদ আশরাফী

বাংলা বিষয়ে ব্যাকরণের প্রস্তুতির জন্য বোর্ড প্রণীত নবম-দশম শ্রেণির ‘বাংলা ভাষার ব্যাকরণ’ বইটি বেশ কাজে দেবে। দেখতে পারেন উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের ভালোমানের কোনো ব্যাকরণ বই। ড. সৌমিত্র শেখরের ‘বাংলা ভাষা ও সাহিত্য জিজ্ঞাসা’ বইটি বেশ সহায়ক। ‘লাল নীল বেগুনি’ নামে আরো একটি বই পাওয়া যায়। এ ছাড়া বাংলা ভাষা, ব্যাকরণ ও সাহিত্যের ওপর বাজারে অনেক বই পাওয়া যায়। যে বইয়ে যে বিষয়টি ভালো দেওয়া আছে, সে বই থেকে সেটি পড়তে হবে।

ইংরেজির প্রস্তুতির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের গ্রামার বই দেখতে পারেন। বাজারে ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্যের ওপর অনেক বই পাওয়া যায়। সাইফুরসের বইগুলোও কাজে দেবে। ইংরেজি পত্রিকা বেশি বেশি পড়তে হবে, বিবিসি শুনতে হবে।

সাধারণ বিজ্ঞান ও গণিতের জন্য অষ্টম, নবম-দশম শ্রেণির বোর্ড বই দেখতে হবে। গণিতের পুরনো সিলেবাসের বইয়ের অঙ্ক সমাধান করলেও কাজে দেবে। ভূগোল, পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার প্রস্তুতির জন্য মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক ও অনার্স লেভেলের বই পড়তে পারেন। বাজারে কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে অনেক বই পাওয়া যায়। বিভিন্ন বইয়ের মার্কেটে গেলেই পেয়ে যাবেন প্রয়োজনীয় বই। পড়তে পারেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের কম্পিউটার শিক্ষা বই। নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসনের জন্য পড়তে হবে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের পৌরনীতি ও নাগরিকতা এবং অনার্স লেভেলের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বই।

বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলির জন্য মাসিক কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স, কারেন্ট ওয়ার্ল্ড, কারেন্ট নিউজ, কারেন্ট ইউনিভার্স সহায়ক। পড়তে পারেন ‘আজকের বিশ্ব’। পাশাপাশি প্রফেসরস প্রকাশনের ‘সমকালীন বিশ্ব’, ‘তথ্যকোষ’, ‘বাংলাদেশ ও নতুন বিশ্ব’, বিসিএস প্রকাশনের ‘চলতি বিশ্ব’, ‘নলেজ ওয়ার্ল্ড’, কারেন্ট পাবলিকেশনসের ‘চলমান বিশ্ব’, ‘সাধারণ জ্ঞান অ্যালবাম’ শিরোনামে বেশ কিছু বই বের হয়। একাধিক বই পড়তে পারেন। ভালো করার জন্য পত্র-পত্রিকার পাতায় প্রতিদিন চোখ রাখতে হবে। নিয়মিত রেডিও-টেলিভিশনের সংবাদ শোনাও জরুরি। তথ্যভিত্তিক অনুষ্ঠানও বাদ দেওয়া যাবে না।

প্রফেসরস, ওরাকল, সেলফ কনফিডেন্স, সিলেক্ট, জেনুইন, এমপিথ্রি প্রভৃতি বিসিএস প্রিলিমিনারি গাইড বাজারে পাওয়া যায়। এসব বইয়ে বিগত বছরের প্রশ্নও দেওয়া থাকে। জব সলিউশন বইগুলোতে দেওয়া বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নগুলো সমাধান করলে কাজে দেবে।

ইন্টারনেট এখন সবচেয়ে বড় তথ্যভাণ্ডার। এমন কোনো বিষয় নেই যার তথ্য ইন্টারনেটে পাওয়া যায় না। আর এতে একটি বিষয়ে প্রচুর তথ্য পাওয়া যায়। তাই ইন্টারনেটের সঙ্গী হয়েও নিজের জ্ঞানের পরিধি বাড়াতে পারেন। কোনো বিষয়ে তথ্য জানতে চাইলে ইন্টারনেটে সার্চ দিলেই বেরিয়ে আসবে। এর একটি বড় সুবিধা হলো, কোনো বিষয় লিখে সার্চ দিলে একসঙ্গে অনেক ফিচার বা আর্টিকেল চলে আসে। এ জন্য জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগল ও ইয়াহুর সাহায্য নিতে পারেন। ইন্টারনেটে অনেক তথ্যবহুল ওয়েবসাইট রয়েছে, যেখানে প্রতিনিয়ত দেশ-বিদেশের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আপডেট করা হয়। ঘরে বসে অনলাইনেই জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সব পত্রিকার ই-সংস্করণ পড়ে নেওয়া সম্ভব।

Comments

comments

Comments are closed.