প্রচ্ছদ > জেনে নিন > বইয়ের খোঁজে পাঠাগারে
বইয়ের খোঁজে পাঠাগারে

বইয়ের খোঁজে পাঠাগারে

বই কিনে কেউ দেউলিয়া হয় না-এ কথা সত্য। তাই বলে কি কারো পক্ষে প্রয়োজনীয় সব বই কেনা সম্ভব? সংগ্রহ করাও কি সহজ? এ সমস্যার সমাধান করতে গড়ে উঠেছে লাইব্রেরি। ঢাকার কিছু লাইব্রেরির খোঁজ-খবর জানাচ্ছেন সাব্বির সামি ও পুষ্পিতা জেনিফার

বেগম সুফিয়া কামাল জাতীয় গণগ্রন্থাগার
এক লাখ ১৯ হাজার ৭৫০টি বই রয়েছে। ইতিহাস, সংস্কৃতি, বিজ্ঞান, সাহিত্য, গণিতসহ সব ধরনের বইয়ের সন্ধান মিলবে। পুরনো পত্রপত্রিকা, সাময়িকীও পাওয়া যাবে। দ্বিতীয় তলায় রয়েছে সাধারণ পাঠকক্ষ। বই বাড়ি নেওয়া যায় না, তবে প্রয়োজনীয় অংশ ফটোকপি করিয়ে নিতে পারেন। তৃতীয় তলায় পত্রিকা, রেফারেন্স ও জেরক্স বিভাগ। নিচতলায় শিশু-কিশোর পাঠকক্ষ। ছয় থেকে ১৫ বছর বয়সী যে কেউ এখানে বসে বই পড়তে পারবেন। শুক্রবার ও অন্যান্য সরকারি ছুটির দিন বাদে প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত লাইব্রেরি খোলা থাকে। শিশু-কিশোর পাঠকক্ষ খোলা থাকে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত।
ঠিকানা : ১০ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০।

ন্যাশনাল আর্কাইভ অ্যান্ড লাইব্রেরি
পাঁচ লাখের বেশি নতুন-পুরনো ও দুর্লভ বই সংগ্রহে আছে। সদস্যরা বই ইস্যু ও ফটোকপি করা ছাড়াও আর্কাইভ থেকে বায়োগ্রাফি, মানচিত্র এবং মাইক্রোফিল্ম কপি করতে পারেন। তিনটি পাঠকক্ষের একটিতে বাংলা বইয়ের সংগ্রহ, একটিতে ইংরেজি বই এবং অন্যটিতে পত্রিকা ও জার্নাল। শুক্রবার ও সরকারি ছুটির দিন ছাড়া প্রতিদিন লাইব্রেরিটি খোলা থাকে।
ঠিকানা : সৈয়দ মাহবুব মোরশেদ সরণি, শেরে বাংলা নগর, ঢাকা-১২০৭।

এশিয়াটিক সোসাইটি লাইব্রেরি
এশিয়াটিক সোসাইটি লাইব্রেরি দুর্লভ বইয়ের সংগ্রহশালা হিসেবে সবার কাছে পরিচিত। এটি মূলত গবেষকদের জন্য। কেবল সদস্যরা লাইব্রেরিটি ব্যবহার করতে পারেন। যদিও অনুমতি সাপেক্ষে অন্যরাও এ লাইব্রেরি ব্যবহারের সুবিধা পেতে পারেন। গবেষকরা খুব সহজেই এ অনুমতি পেতে পারেন।
ঠিকানা : ৫ পুরাতন সেক্রেটারিয়েট রোড (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অমর একুশে হলের পাশে), নিমতলী, রমনা, ঢাকা-১০০০।

মহানগর লাইব্রেরি
পনেরো হাজারের মতো বই আছে। লাইব্রেরির  উপ-গ্রন্থাগারিক ফরিদ উদ্দীন জানান, সরকারি ছুটির দিন ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকে।
সাহিত্য, সংস্কৃতি, বিজ্ঞান, গণিত, ইতিহাসবিষয়ক বই ছাড়াও আছে বিদেশি অনেক বই। দেশি-বিদেশি সংবাদপত্র ও ম্যাগাজিন পড়া যায়। ই-লাইব্রেরি থেকে প্রয়োজনীয় চাকরির বিজ্ঞপ্তি সংগ্রহ করা যায়, যা পাঠকের সুবিধার্থে বোর্ডে টানিয়ে রাখা হয়। সদস্যরা বই ইস্যু করে বাইরে নিতে পারেন।
ঠিকানা : গুলিস্তান (গোলাপশাহ মাজারের সামনে), ঢাকা।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন লাইব্রেরি
এক লাখ ৩০ হাজারের মতো বই এ লাইব্রেরির সংগ্রহে আছে। এর অধিকাংশই ইসলামী ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিবিষয়ক। ইতিহাস, ভূগোল, গণিত, দর্শন, স্বাস্থ্যবিষয়ক বইও আছে এখানে। শনিবার ছাড়া সপ্তাহের অন্যান্য দিন পাঠকের জন্য এটি উন্মুক্ত। সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত  খোলা থাকে।
ঠিকানা : বায়তুল মোকাররম (বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম), গুলিস্তান, ঢাকা।

বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ লাইব্রেরি
সামাজিক বিজ্ঞানবিষয়ক দেশের সবচেয়ে বড় লাইব্রেরি। এক লাখ ৩০ হাজারের মতো বই ও জার্নাল আছে এখানে। শুক্রবার ও সরকারি ছুটির দিন বাদে প্রতিদিন খোলা থাকে।
ঢাকার নির্দিষ্ট কিছু লাইব্রেরির সঙ্গে এ লাইব্রেরির বই ও তথ্য আদান-প্রদান চুক্তি আছে। এ কারণে পাঠকরা প্রায়ই নতুন বই পেয়ে থাকেন।
ঠিকানা : ই-১৭ আগারগাঁও, শেরে বাংলানগর, ঢাকা।

 

বিশেষায়িত লাইব্রেরি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় লাইব্রেরি

সংগ্রহের দিক থেকে দেশের সবচেয়ে বড় লাইব্রেরি এটি। ছয় লাখ ১৬ হাজার ৮৬৫টি বই ও সাময়িকী আছে গ্রন্থাগারটিতে। ৩০ হাজারেরও বেশি বিরল পাণ্ডুলিপি ও মাইক্রোফিল্মও লাইব্রেরির সংগ্রহে আছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই কেবল লাইব্রেরিটি ব্যবহার করতে পারেন। পুরনো পত্রিকার সংগ্রহও আছে লাইব্রেরিতে।
ঠিকানা : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা-১০০০।

বাংলা একাডেমী লাইব্রেরি
এক লাখ ২০ হাজার বই ও ৭০ হাজার পত্রপত্রিকার এক বিশাল সংগ্রহশালা এ লাইব্রেরি। জার্নালও আছে অনেক। সরকারি ছুটির দিন বাদে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা থাকে। লাইব্রেরির প্রধান গ্রন্থাগারিক অপরেশ কুমার ব্যানার্জী জানান, লাইব্রেরিটি মূলত গবেষকদের জন্য। গবেষকরা এখানে বিনা মূল্যে সদস্য হতে পারেন। ইতিহাস, সাহিত্য, বিজ্ঞানের সব বই এখানে পাওয়া যায়।
ঠিকানা : ৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা), রমনা, ঢাকা-১০০০।

ব্যানবেইস লাইব্রেরি
লাইব্রেরিটির গ্রন্থাগারিক ফরিদা ইয়াসমিন জানালেন, ছুটির দিন বাদে প্রতিদিন সকাল ৯টা ৩০ মিনিট থেকে ৪টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত লাইব্রেরি খোলা থাকে। নিচ তলায় সাধারণ পাঠকক্ষ ও দ্বিতীয় তলায় আছে ডকুমেন্টেশন সেন্টার। এতে দুই হাজার ৫৭৭টি শিক্ষাবিষয়ক ডকুমেন্ট, ১২২টি সাময়িকী আছে।
লাইব্রেরির ই-বুক সেন্টার থেকে যে কেউ পেনড্রাইভ বা সিডিতে কপি করে প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করতে পারেন।
ঠিকানা : ১ সোনারগাঁও রোড (পলাশী-নীলক্ষেত এলাকা), ঢাকা-১২০৫।

 

শিশুদের বইয়ের জগৎ

শিশুদের বইয়ের এক অন্য জগৎ শিশু একাডেমী লাইব্রেরি। শিশু একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক জোবেদা খানমের নামে এ লাইব্রেরির নাম ‘জোবেদা খানম চিলড্রেন লাইব্রেরি’। এতে একই সময়ে ২০০ শিশু পড়তে পারে। ২৭ হাজার বই এ লাইব্রেরির সংগ্রহে আছে। সদস্য হয়ে বই ইস্যু করে বাসায় নিয়েও পড়ার সুযোগ আছে। শিশুদের বই পড়ার অভ্যাস তৈরি করতে সাধারণ জ্ঞান, উপস্থিত বক্তৃতা, বিতর্ক, রচনা, গল্প বলা প্রতিযোগিতাসহ লাইব্রেরিভিত্তিক অনেক কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। লাইব্রেরিটি সপ্তাহের সাত দিনই সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকে।
ঠিকানা : শিশু একাডেমী, পুরাতন হাইকোর্ট এলাকা, ঢাকা-১০০০।

দোরগোড়ায় লাইব্রেরি

বইয়ের জন্য লাইব্রেরিতে যেতে হয় না, লাইব্রেরিই পৌঁছে যায় পাঠকের দোরগোড়ায়! এমন একটি ভিন্নমাত্রার লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠা করেছে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র। শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে ১২টা ও বেলা ২টা থেকে রাত ৮টা এবং সপ্তাহের অন্যান্য দিন বেলা ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এ ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরি পৌঁছে যায় ঢাকার ২০০টি নির্দিষ্ট স্পটে। ১০০ টাকা (ফেরতযোগ্য) জমা দিয়ে যে কেউ সাধারণ সদস্য হতে পারেন। আর বিশেষ সদস্যের ক্ষেত্রে জমা দিতে হয় ২০০ টাকা (ফেরতযোগ্য)। সাধারণ সদস্যরা ১৫০ টাকা মূল্যমানের বই আর বিশেষ সদস্যরা ৪০০ টাকা পর্যন্ত মূল্যের বই দুই সপ্তাহের জন্য বাসায় নিতে পারে। আর সব সদস্যের জন্যই মাসিক চাঁদা মাত্র ১০ টাকা। বই পড়া কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে মূল্যায়ন পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা জিততে পারে পুরস্কার।
ঠিকানা : ১৪ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, বাংলামোটর, ঢাকা-১০০০।

অন্য দেশের লাইব্রেরি

ব্রিটিশ কাউন্সিল লাইব্রেরি
শনি থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা এবং শুক্রবার বেলা ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকে। ইংরেজি ভাষা, সাহিত্য, দর্শন, বিজ্ঞান, রেফারেন্স, জার্নালসহ বিভিন্ন বই আছে। পত্রপত্রিকা এবং ইংরেজি শিক্ষার সিডি, অডিও, ডিভিডিও আছে। সদস্যরা বই ও ডিভিডি ইস্যু করে বাসায়ও নিতে পারেন। নির্দষ্টি ফির বিনিময়ে লাইব্রেরির সদস্য হওয়া যায়।
ঠিকানা : ৫ ফুলার রোড (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা), ঢাকা-১০০০।

আমেরিকান সেন্টার লাইব্রেরি
বই ছাড়াও প্রায় ৮০টি সাময়িকী এবং বিভিন্ন সংবাদপত্র আছে। শিশুদের জন্য আছে আলাদা কর্নার। আছে ডিভিডির কালেকশন। ১৩ বছরের ঊর্ধ্বে যে কেউ এর সদস্য হতে পারে। বৃহস্পতি থেকে শনিবার লাইব্রেরি বন্ধ থাকে।
ঠিকানা : বাড়ি-১১০, রোড-২৭, বনানী, ঢাকা-১২১৩।

আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ
আছে ছয় হাজারেরও বেশি বই। তবে অধিকাংশ ফরাসি ভাষায় হলেও বাংলা ও ইংরেজি ভাষার বইও নেহায়েত কম নয়। এ লাইব্রেরিতে রাখা হয় ফ্রান্সের ২৭টি ম্যাগাজিন ও চারটি জার্নাল। আরো রয়েছে এক হাজার এক শরও বেশি চলচ্চিত্র। আন্তর্জাতিক ও ফরাসি সংগীত মিলিয়ে সংগ্রহশালায় রয়েছে ৬০০ অ্যালবাম।
বার্ষিক দুই হাজার টাকা দিয়ে যে কেউ এ লাইব্রেরির সদস্য হতে পারবেন। ধানমণ্ডি, উত্তরা ও বারিধারা মিলিয়ে ঢাকায় আলিয়ঁস ফ্রঁসেজের তিনটি শাখা রয়েছে।
ঠিকানা : ২৬ মিরপুর রোড, ঢাকা।

রাশিয়ান সেন্টার অব সায়েন্স অ্যান্ড কালচার
এ লাইব্রেরির সংগ্রহে রয়েছে ১২ হাজারেরও বেশি বই ও অ্যালবাম। বিজ্ঞান, ইতিহাস, কলা, উপন্যাস, ভ্রমণবিষয়ক বইয়ের পাশাপাশি এখানে রয়েছে রুশ ভাষার বিদ্যালয়ের পাঠ্যবই। ইংরেজি, বাংলা ও রুশ-এ তিন ভাষার বই আছে।
এ ছাড়াও ২৮টি বাংলা পত্রিকা এবং রুশ ভাষার ৯টি দৈনিক পত্রিকা ও ম্যাগাজিন, সিডি-ডিভিডি নিয়মিত রাখা হয়। বার্ষিক সদস্য ফি ৩০০ টাকা। তবে বই বাসায় আনতে হলে গুনতে হবে ৫০০ টাকা।
ঠিকানা : ধানমণ্ডি-৮, ঢাকা।

গ্যেটে ইনস্টিটিউট
এটিও একটি পূর্ণাঙ্গ লাইব্রেরি। এখানে রয়েছে বইয়ের পাশাপাশি অডিও-ভিজ্যুয়াল সেবা। লাইব্রেরিটি সমকালীন বিষয়কে বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকে। এখানে রয়েছে ইংরেজি ও জার্মান ভাষায় নানা সংগ্রহ। এ ছাড়াও এখানে জার্মানির দৈনিক ও সাপ্তাহিক সংবাদপত্রের পাশাপাশি রাখা হয় দেশটির উল্লেখযোগ্য সব জার্নাল।
ঠিকানা : বাড়ি-১০, রোড-৯ (নতুন), ধানমণ্ডি, ঢাকা।

আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ লাইব্রেরির ঠিকানা

আহসানিয়া মিশন লাইব্রেরি
হাউজ নং ১৯, রোড নং ১২, ধানমণ্ডি, ঢাকা
ফেডারেশন লাইব্রেরি
৬০ মতিঝিল, ঢাকা
ফাও (FAO) লাইব্রেরি
বাড়ি-৩৭, রোড-৮, ধানমণ্ডি, ঢাকা
ব্যান্সডক লাইব্রেরি
আগারগাঁও, শেরে বাংলা নগর, ঢাকা

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর লাইব্রেরি
৫ সেগুনবাগিচা, ঢাকা
কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট লাইব্রেরি
বাড়ি-৩, রোড-১৪/এ  শংকর, ঢাকা
জাতিসংঘ তথ্যকেন্দ্র লাইব্রেরি
আইডিবি ভবন, শেরে বাংলা নগর, ঢাকা
নজরুল ইনস্টিটিউট
বাড়ি-৩৩০/বি, রোড-২৮ (পুরাতন) ধানমণ্ডি আবাসিক এলাকা, ঢাকা
শিল্পকলা একাডেমী
সেগুনবাগিচা, রমনা, ঢাকা

Share and Enjoy !

0Shares
0 0

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*