প্রচ্ছদ > জেনে নিন > ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে চান?
ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে চান?

ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে চান?

গাড়ি চালানো তো শিখলেন। তাই বলে হুট করে রাজপথে গাড়ি চালাতে যাবেন না। নানা ঝামেলায় পড়তে পারেন। এসব ঝামেলা থেকে দূরে থাকতে হলে এখন আপনাকে জোগাড় করতে হবে গাড়ির ড্রাইভিং লাইসেন্স। আর সেটা কিভাবে সংগ্রহ করবেন, তা জানাচ্ছেন তানজিল আহমেদ জনি

 
ড্রাইভিং লাইসেন্স পাবেন যেভাবে
ড্রাইভিং লাইসেন্স দেওয়া হয় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) থেকে। প্রথমেই বিআরটিএ কার্যালয় কিংবা এর ওয়েবসাইট www.brta.gov.bd থেকে ডাউনলোড করে নিতে হবে আবেদনপত্র ও মেডিক্যাল সার্টিফিকেট ফরম। এরপর আবেদনপত্রটি নিজ হাতে এবং মেডিক্যাল সার্টিফিকেট একজন রেজিস্টার্ড ডাক্তার দ্বারা পূরণ করতে হবে। এরপর তিন কপি স্ট্যাম্প ও এক কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবিসহ আবেদনপত্রটি বিআরটিএ অফিসে জমা দিতে হবে। নির্ধারিত ফি জমা দিতে হবে সংশ্লিষ্ট পোস্ট অফিসে। আবেদন পাওয়ার পর কর্তৃপক্ষ এর যথার্থতা বিবেচনা করে সাধারণত সাত দিনের মধ্যে শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স দেয়। এর মেয়াদ থাকে তিন মাস। কর্তৃপক্ষের দেওয়া সময় অনুযায়ী ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য লিখিত, মৌখিক ও ব্যবহারিক পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। উত্তীর্ণ হলে তবেই পাওয়া যাবে চাহিদামতো ড্রাইভিং লাইসেন্স। এ ক্ষেত্রে বয়স হবে সর্বনম্নি ১৮, এমন একটি শর্তও আছে।
ট্রাক, লরি, বাসের মতো ভারী যানবাহনের লাইসেন্স পেতে হলে আগে হালকা মোটরযানের লাইসেন্স থাকতে হবে। হালকা মোটরযানের লাইসেন্স পাওয়ার তিন বছর পার না হলে ভারী যানবাহনের লাইসেন্সের জন্য আবেদন করা যাবে না। অপেশাদার লাইসেন্স ১০ বছর এবং পেশাদার লাইসেন্স পাঁচ বছর পর পর নবায়ন করাতে হয়।

 
লাইসেন্স ফি
বিআরটিএর লাইসেন্স ফি বিআরটিএ নির্ধারিত পোস্ট অফিসে জমা দিতে হবে। শুধু প্রাইভেটকারের জন্য শিক্ষানবিশ ফি ২৩০ টাকা। আর প্রাইভেট কার ও মোটরসাইকেলের জন্য ৩৪৫ টাকা।  অপেশাদার লাইসেন্স ফি শুধু প্রাইভেটকারের জন্য দুই হাজার ৩০০ টাকা এবং হালকা বাহন ও মোটরসাইকেলের জন্য দুই হাজার ৪০০ টাকা।
অন্যদিকে যারা বিদেশে গাড়ি চালাতে চায় তাদের নিতে হবে আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং পারমিট। তাঁর বাংলাদেশের বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স অবশ্যই থাকতে হেব। আন্তর্জাতিক লাইসেন্সের জন্য চেয়্যারম্যান, অটোমোবাইল অ্যাসোসিয়েশন ৩/বি আউটার সার্কুলার রোড, মগবাজার, ঢাকা থেকে এক হাজার ২৫০ টাকা দিয়ে ফরম সংগ্রহ করতে হবে। ফরমের সঙ্গে পাসপোর্টের ফটোকপি, তিন কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি ও ড্রাইভিং লাইসেন্সের ফটোকপি জমা দিতে হবে। এরপর অটোমোবাইল অ্যাসোসিয়েশনের চেয়্যারম্যান এবং বিআরটিএর সহকারী পরিচালকের (ইঞ্জি.) যৌথ স্বাক্ষরে আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং পারমিট ইস্যু হবে।

 
লাইসেন্স নবায়ন ফি
মেয়াদোত্তীর্ণ ড্রাইভিং লাইসেন্স নিয়ে রাস্তায় গাড়ি চালালে গাড়ির চালককে গুনতে হবে জরিমানা। এ ঝামেলার হাত থেকে রক্ষা পেতে হলে যথাসময়ে লাইসেন্স নবায়ন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে গাড়ির চালককে অপেশাদার লাইসেন্সের নবায়নের জন্য লাগবে ২৩০০ টাকা, যার মেয়াদ থাকবে ১০ বছর।
আর পেশাদার লাইসেন্স নবায়নের জন্য গুনতে হবে এক হাজার ৪৩৮ টাকা এবং যার মেয়াদ থাকবে পাঁচ বছর পর্যন্ত। এ ছাড়া কাজের চাপে কিংবা অন্য কোনো কারণে লাইসেন্স নবায়ন করতে ভুলে গেলে প্রতিবছর ১০০ টাকা হারে জরিমানাও গুনতে হবে লাইসেন্স নবায়নকারীকে।

 

বিআরটিএ প্রধান কার্যালয়ের ঠিকানা
মিরপুর-১০, ফোন-৯০০৩৬৬৬ এবং ওয়েবসাইট ঠিকানা www.brta.gov.bd

 

Share and Enjoy !

0Shares
0 0

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*