প্রচ্ছদ > কেনাকাটা > বাদ্যযন্ত্রের খোঁজখবর
বাদ্যযন্ত্রের খোঁজখবর

বাদ্যযন্ত্রের খোঁজখবর

গান টানে অনেককেই। কিন্তু গান-বাজনা শিখতে চাইলে সবার আগে চাই বাদ্যযন্ত্র। সায়েন্স ল্যাবের সুরবিতানের বিক্রয়কর্মী রানা জানান, দেশি-বিদেশি সব ধরনের ইন্সট্রুমেন্টই পাওয়া যায়। আর তা থেকে বেঁছে নিতে পারবেন আপনারটি।

হরেক রকম বাদ্যযন্ত্র
দেশি ইন্সট্রুমেন্টের মধ্যে আছে হারমোনিয়াম, বাঁশি, তবলা, একতারা, দোতারা, ঢোল, কৃষ্ণকাঠি। এ ছাড়া বিদেশি ইন্সট্রুমেন্টের মধ্যে পাবেন গিটার, বেহালা, ট্রামপেট, ড্রাম, সেতার, সেকাম, ম্যান্ডোলিন, তানপুরা, জিপসি, কি-বোর্ড, সুরমঙ্গল।

বাদ্যযন্ত্রের দরদাম
হারমোনিয়ামের দাম ৮০০০ থেকে ৫৫০০০ টাকা। তবলা এক জোড়া ৩৫০০ থেকে ১০০০০ টাকার মধ্যে পাবেন ম্যানুয়াল ও ইলেকট্রিক। বাঁশের বাঁশি ৫০ থেকে ১০০ টাকা। ইন্ডিয়ান বেহালা ৩৫০০ টাকা, চায়নিজ বেহালা ৬০০০ টাকা। অ্রাকুস্টিক গিটার ২০০০ থেকে ৮০০০ টাকা।
ইলেকট্রিক গিটার ৩০০০০ থেকে ১৫০০০০ টাকা। ড্রাম ৯০০০ থেকে ৮০০০০ টাকা। একতারা ১০০ থেকে ৫০০ টাকা। দোতারা ৩০০০ টাকা। সেতার ১২০০০ টাকা। সেকাম ৫০০ টাকা। ম্যান্ডোলিন ৫০০০ টাকা। ট্রামপেট ৫০০০ টাকা। তানপুরা ১০০০০ টাকা। কৃষ্ণকাঠি ২৫০ টাকা। সুরমঙ্গল ৩০০০০ টাকা। কি-বোর্ড ৩০০০ থেকে ১৫০০০ টাকা। ঢোল ২০০ থেকে ৩০০০ টাকা।
আর কোনো ইন্সুট্রুমেন্ট ঠিক করাতে চাইলে ৫০০ থেকে ২০০০ টাকার মধ্যে করাতে পারবেন।

কোথায় পাবেন
সায়েন্স ল্যাবে আছে গানের ইন্সট্রুমেন্টের অনেক দোকান। এ ছাড়া বসুন্ধরা সিটি, মহাখালী ও পুরান ঢাকার শাঁখারীবাজারেও বেশ কিছু দোকান পাবেন।

Share and Enjoy !

0Shares
0 0

Comments

comments

Comments are closed.