প্রচ্ছদ > কেনাকাটা > কবুতরের হাট: যেখানে পাওয়া যায় সবধরণের কবুতর
কবুতরের হাট: যেখানে পাওয়া যায় সবধরণের কবুতর

কবুতরের হাট: যেখানে পাওয়া যায় সবধরণের কবুতর

রঙ-বেরঙের বিভিন্ন জাতের পোষা কবুতর নিয়ে শত শত মানুষের যেন এক মিলনমেলা বসেছে রাজধানীর কাপ্তান বাজারে। এখানে যারা আসেন তাদের কেউ কবুতর বিক্রেতা, আর কেউবা ক্রেতা। সপ্তাহের প্রতি শুক্রবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত এই হাটে চলে কবুতর কেনাবেচা

ক্রেতা, বিক্রেতা ও স্থানীয়রা জানায়, কাপ্তান বাজার হলো রাজধানীর সবচেয়ে বড় কবুতর কেনাবেচার বাজার। এখানে সর্বনিন্ম ৫০০ থেকে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা দামের কবুতর পাওয়া যায়।

মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারের গুলিস্তান ২ নম্বর গেইট এলাকায় এই বাজারের অবস্থান। প্রতি শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে এই বাজার জমতে শুরু করে। রাজধানী ও এর আশপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন কবুতর নিয়ে এই হাটে আসেন। আর এই কেনাবেচা চলে বিকাল ৫টা পর্যন্ত।

সরেজমিনে দেখা যায়, শুক্রবার সকাল থেকে বিক্রেতারা বিভিন্ন জাতের কবুতর নিয়ে বাজারে আসছেন। একইসঙ্গে ক্রেতারাও এসে বাজারে ভিড় করছেন। রাস্তার দু’পাশে সারিবদ্ধভাবে খাঁচা নিয়ে বসছেন বিক্রেতারা। ক্রেতাদেরকে ঘুরে ঘুরে তাদের পছন্দের কবুতর খুঁজতে দেখা যায়।

সকাল থেকে ক্রেতা ও বিক্রেতারা জমায়েত হতে থাকলেও মূলত দুপুরের পর থেকে এই হাটে বেচাকেনা বাড়তে থাকে। একদিকে যেমন বাজারে বিভিন্ন ব্যক্তি আসেন তাদের পোষা কবুতর বিক্রি করতে, একইভাবে পাইকার বিক্রেতারাও কবুতর বিক্রি করে থাকেন এই হাটে। কেউ কবুতর বিক্রি করলে তাদের কাছ থেকে বিক্রির অর্থের ১০ শতাংশ হাটের ইজারাদারকে দিতে হয়।

পোষা পাখি কবুতর নিয়ে বিভিন্ন জরিপে দেখা যায়, বিশ্বে ১২০ জাতের বিভিন্ন রঙ-বেরঙের কবুতর থাকলেও বাংলাদেশে ২০ জাতের কবুতর পাওয়া যায়।
তবে কাপ্তান বাজারের বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এই বাজারে পোটার জাতের কবুতর (সাদা, কালো ও হলুদ), কিং, ৠান, সিরাজী, জ্যাকপিন, বন, ঝর্ণা শাটিং, গিরীবাজ, জগা পিন, জার্মান ও হল্যান্ডের গ্লু পটার, একপেঞ্জার হেনা, পালিসনেস, সেকশন স্ট্রেচার, ফরমুনা, চন্দন এডেল, হেমলেট ও লাক্ষা জাতের কবুতর পাওয়া যায়। এছাড়া দেশি বিভিন্ন জাতের অসংখ্য কবুতর বিক্রি হয়ে থাকে এই বাজারে।

তাবারুল হক

বাজারে কবুতর বিক্রি করতে রাজবাড়ি থেকে আসা রিয়ন আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, এক জোড়া হলুদ পোটার কবুতর বিক্রি হচ্ছে ৫ হাজার থেকে সাড়ে ৫ হাজার টাকা। এছাড়া ৠান কালো ৬ হাজার ও হোয়াইট ৠান ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা, হোয়াইট কিং ১৫ থেকে ২০ হাজার, হলুদ সিরাজী ৬ হাজার এবং সিরাজী ব্লু  ৮ হাজার, জ্যাকপিন সাদা ২৫ হাজার ও জ্যাকপিন কালো ২০ হাজার টাকা দাম হাঁকাচ্ছেন।

অন্যদিকে, বন জাতের কবুতর ১০ হাজার, ঝর্ণা শাটিং ৬ হাজার, গিরীবাজ ২ হাজার ও জগা পিন ২০ হাজার টাকা দাম বলে তিনি জানান।

নরসিংদী থেকে আসা আরেক কবুতর বিক্রেতা তানভীর বাংলানিউজকে বলেন, জার্মান ও হল্যান্ড গ্লু পটার জাতের কবুতর জোড়া ১৫ হাজার টাকা ও একপেঞ্জার হেনা ১৫ থেকে ২০ হাজার বিক্রি হচ্ছে। গ্লু পটার জাতের এই কবুতর গত আট মাস আগে বাজারে ৬৫ থেকে ৭০ হাজার টাকা ও হেনা জাতের কবুতর এক লাখ টাকা দাম ছিল বলে জানান তিনি।

এছাড়া পালিসনেস্ ২০ হাজার, সেকশন স্ট্রেচার ১৫ হাজার টাকায় দাম বলে জানান তিনি। রাজধানীর যাত্রাবাড়ির মো. সুমন জানান, ফরমুনা জাতের কবুতরের দাম ২৫ হাজার টাকা, চন্দন ৪ হাজার, এডেল ৬ হাজার, হেমলেট ১২ হাজার, লাক্ষা চকলেট কালার ৮ হাজার এবং লাক্ষা কালো জাতের কবুতর ৫ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া দেশি জাতের আরো বিভিন্ন রঙের কবুতরের দাম ৫০০ থেকে দুই হাজার টাকা বলে বিক্রেতারা জানিয়েছেন।  নারায়ণগঞ্জ থেকে কবুতর কিনতে আসা মিজানুর রহমান বলেন, তিনি র্দীঘদিন ধরে কাপ্তান বাজারের এই কবুতরের হাটে আসছেন। তার বাড়িতে বিভিন্ন জাতের শতাধিক কবুতর রয়েছে। আরো নতুন কোনো জাতের পছন্দের কবুতর কিনতে হাটে এসেছেন। দুপুরে সিরাজী ও ৠান জাতের দুই জোড়া কবুতর কিনেছেন বলেও জানান তিনি।

কাপ্তান বাজার ছাড়াও রাজধানীর আরো কয়েকটি এলাকায় কবুতরের হাট জমে। এগুলোর মধ্যে ঠাঁটারীবাজারে একটি কবুতরের বড় হাট রয়েছে। এখানে প্রতিদিন কবুতর বেচাকেনা হয়ে থাকে।

এছাড়া রাজধানীর নিমতলী, মৌলভীবাজার, জিঞ্জিরা বাজার, কামরাঙ্গীরচর ও গাবতলীর আমিনবাজারে সপ্তাহে একদিন কবুতরের হাট বসে।

#তাবারুল হক

Share and Enjoy !

0Shares
0 0 0

Comments

comments

Comments are closed.