প্রচ্ছদ > কেনাকাটা > পুরোনো ফার্নিচার বিকিকিনি
পুরোনো ফার্নিচার বিকিকিনি

পুরোনো ফার্নিচার বিকিকিনি

ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় আছে পুরোনো আসবাব কেনাবেচার দোকান। বিস্তারিত জানাচ্ছেন জান্নাতুল তানজিনা

শওকত আহমেদের বদলির চাকরি। বেশ কয়েক বছর ঢাকায় কাজ করার পর হঠাৎ তিনি বদলি হলেন চট্টগ্রামে। ঢাকা ছাড়ার আগে বাসাভর্তি জিনিসপত্র নিয়ে শওকত অথই জলে পড়লেন। অত কিছু তো আর চট্টগ্রাম বয়ে নেওয়া সম্ভব নয়। যখন কী করা যায় ভেবে পাচ্ছিলেন না, তখনই একটি লিফলেট তাঁর সব মুশকিল আসান করে দিল। ‘পুরোনো আসবাবপত্র ক্রয়-বিক্রয় করা হয়। যোগাযোগ-০১৭১……।’
অফিস থেকে ফেরার পথে লেখাটি চোখে পড়তেই শওকত যেন আকাশের চাঁদ হাতে পেলেন। বাসায় পৌঁছেই তড়িঘড়ি করে টুকে রাখা নম্বরটিতে ফোন দিলেন। কিছুক্ষণের মধ্যেই কয়েকজন লোক চলে এলেন গুলশান শপিং কমপ্লেক্সের পুরোনো ফার্নিচারের বাজার মার্কেট থেকে। তারপর খুঁটিয়ে দেখাদেখি, কিছুক্ষণ দর-কষাকষি, সবশেষে দাম চুকিয়ে দিয়ে গাড়ি বোঝাই করে শওকত আহমেদকে ঝামেলামুক্ত করে আসবাব নিয়ে তাঁদের চলে যাওয়া।
কেউ কেউ প্রায়ই বাসার খোলস বদলে ফেলতে পছন্দ করেন। তাঁদের পুরোনো জিনিসপত্র বিক্রির প্রয়োজন পড়ে। আবার উল্টোটিও হয়। অর্থাৎ পুরোনো আসবাব বা তৈজসপত্র কেনার লোকও কম নয়। তাঁদের কথা মনে রেখেই পুরো ঢাকা শহরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে অসংখ্য পুরোনো আসবাবের (ফার্নিচার) বাজার। লোকমুখে ফার্নিচার মার্কেট নামেই পরিচিত। নামে ফার্নিচার শব্দটি থাকলেও এসব মার্কেটে এসি-ফ্রিজ থেকে শুরু করে কোথাও কোথাও বাসনকোসন পর্যন্ত কেনাবেচা চলে। এসব মার্কেটের মধ্যে গুলশান শপিং কমপ্লেক্সের দ্বিতীয় তলার বাজারটি বেশ বড়। প্রায় ১২০টি দোকান নিয়ে এই বাজার। পুরোনো আসবাব কেনা, মেরামত করা, পলিশ করা, রং করা, তারপর বিক্রি করা—এই সুবিশাল কর্মযজ্ঞের সবই এখানে চলছে অবিরাম। অবশ্য সপ্তাহের রোববার বাদে।
গুলশানে নাভানা টাওয়ারের বিপরীতে অবস্থিত এই মার্কেটটি ছাড়াও ঢাকায় কিছু ব্যস্ত পুরোনো আসবাবের মার্কেট রয়েছে, যেখানে রাত-দিন চলে ক্রেতা-বিক্রেতার আনাগোনা। এমন কিছু মার্কেটের খোঁজ দেওয়া হলো :

* পান্থপথের পুরোনো আসবাবের বাজারটির অবস্থান বসুন্ধরা সিটির বিপরীতে মসজিদের পূর্বদিকের গলিতে। শতাধিক দোকান নিয়ে এই মার্কেট। প্রতি মঙ্গলবার বন্ধ থাকে।

* পুরান ঢাকার নয়াবাজারের কাঠপট্টিতে পুরোনো জিনিসপত্রের একটি মার্কেট রয়েছে। প্রতি শুক্রবার বন্ধ থাকে।

* সেগুনবাগিচা মৎস্য ভবন থেকে একটু পূর্বদিকে গেলেই পাওয় যায় একটি পুরোনো আসবাবের মার্কেট। বন্ধ থাকে শুক্রবার।

* কচুক্ষেত শাপলা চত্বরের সামনে আছে এমন একটি মার্কেট।

* উত্তরা ১১ নম্বর সেক্টরে রয়েছে আরেকটি মার্কেট। সাপ্তাহিক বন্ধ বুধবার।

* মোহাম্মদপুর টাউনহলের পাশে রয়েছে মাঝারি আকারের একটি পুরোনো আসবাবের মার্কেট। এ ছাড়া শহরের প্রায় সব এলাকায়ই দু-একটি করে পুরোনো আসবাব বা তৈজসপত্রের দোকান দেখতে পাওয়া যায়।

Share and Enjoy !

0Shares
0 0

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*