প্রচ্ছদ > শিক্ষা > ই-বুক > বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের অনলাইন লাইব্রেরি
বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের অনলাইন লাইব্রেরি

বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের অনলাইন লাইব্রেরি

ওয়েবসাইটে ঢুকে বিনামূল্যে সাহিত্যের বই পড়া যাবে। করা যাবে ডাউনলোডও। চারটি বই পড়লে একটি বই পুরস্কার! এমন সব সুবিধা নিয়ে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র চালু করেছ অনলাইন লাইব্রেরি ‘আলোর পাঠশালা’। শুরুতে পাঠকেরা ৭২টি বই ইন্টারনেটে পড়তে ও ডাউনলোড করতে পারবেন। অনলাইন লাইব্রেরিটির ঠিকানা www.alorpathshala.org ।
ল্যাপটপ, ট্যাবলেট কম্পিউটার, ই-বুক রিডার অথবা মোবাইল হ্যান্ডসেটের মাধ্যমে বইগুলো পড়া যাবে। এছাড়াও পাঠকেরা বইগুলো ডাউনলোড করতে পারবে। শুধু তাই নয় প্রতি চারটি বই পড়া শেষ করলে পুরস্কার হিসেবে একটি বইও পাবেন পাঠকেরা।
দেশের যেকোনো পেশার, যেকােনো বয়সের মানুষ ওয়েবসাইটটিতে ঢুকে ফ্রি রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে সাহিত্যের এই বইগুলো পড়তে ও ডাউনলোড করতে পারবে।
বাংলাদেশে প্রথম কোনো ওয়েবসাইট হিসেবে অনলাইনে বই পড়ার সুযোগ নিয়ে এসেছে ‘আলোর পাঠশালা’। অনলাইনে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের বই পড়ার এই ওয়েবসাইট কর্মসূচিতে সহায়তা করেছে গ্রামীণফোন।
রাজধানীর বাংলামোটরে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের মিলনায়তনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ওয়েবসাইটটি উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ, তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মোস্তাফা জব্বার এবং গ্রামীণফোনের কর্পোরেট কমিউনিকেশন প্রধান সৈয়দ তাহমিদ আজিজুল হক।
শিক্ষামন্ত্রী বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রকে ‘আলোকিত’ মানুষ গড়ার ‘তীর্থস্থান’ বলে মন্তব্য করেন। ‘আলোকিত’ মানুষ গড়তে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের ‘দেশভিত্তিক উৎকর্ষ কার্যক্রম’র মতো করে শিক্ষা মন্ত্রণালয় একটি বইপড়া কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বলে জানান তিনি। ‘পাঠাভ্যাস উন্নয়ন’ নামের এই কর্মসূচির আওতায় দেশের ১২৫টি উপজেলার প্রায় সাত হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।
আলোর পাঠশালা কর্মসূচির মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ বাংলা এবং বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের অনেক বই পড়ার সুযোগ পাবেন বলে আশা প্রকাশ করেন আলোকিত মানুষ গড়ার কারিগর আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ।

Share and Enjoy !

0Shares
0 0 0

Comments

comments

Comments are closed.