প্রচ্ছদ > স্বাস্থ্য > শীতে ত্বকের সমস্যা
শীতে ত্বকের সমস্যা

শীতে ত্বকের সমস্যা

এরই মধ্যে শীতের বাতাস বইতে শুরু করেছে। কাঠফাটা গরমের পর এই শীতের হালকা বাতাস স্বস্তি এনে দিলেও নিয়ে আসছে নানান সমস্যা।

শীতে সব থেকে বেশি ক্ষতি হয় আমাদের ত্বক। শীতল আবহাওয়ায় জলীয়বাষ্প কমে যাওয়ার কারণে ত্বক রুক্ষ হয়ে যায়। আর রুক্ষ ও শুষ্ক ত্বকে নানান ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। এর মধ্যে অ্যালার্জি, চামড়া ওঠা ও ত্বক ফেটে যাওয়া খুবই সাধারণ কিছু সমস্যা।

তাছাড়া এই সময় ঠান্ডা থেকে বাঁচতে মোজা পরার কারণে হাতে ও পায়ে দুর্গন্ধও হয়ে থাকে। তবে সাধারণ কিছু পরিচর্যা ও নিয়ম মেনে চললেই এই বিরক্তিকর সমস্যাগুলো থেকে রেহাই পাওয়া যায়। তাই অতিরিক্ত শীত পড়ার আগেই যদি ত্বকের যত্ন নেওয়া যায় তাহলে সমস্যার প্রকোপ কিছুটা কমানো যাবে।

শীতে ত্বকের সাধারণ কিছু সমস্যা নিয়ে পরামর্শ দিলেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চর্মরোগ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. রাশেদ মোহাম্মদ খান। তিনি বলেন, “শীতে ত্বকে এক ধরনের এলার্জি দেখা দেয় যাকে বলে ডিসহাইড্রোটিক এক্সিমা। এর কারণে হাত ও পায়ের তালুতে ছোট ছোট দানার মতো ফুসকুড়ি দেখা দেয় এবং চুলকানি হয়। তাছাড়া হাত ও পায়ের তালুসহ শরীরের বিভিন্ন অংশের চামড়া ওঠে। পায়ের তালু ফেটে যাওয়া ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে।”

“মূলত ত্বকে আদ্রতা কমে যাওয়ার কারণে এ সমস্যাগুলো হয়ে থাকে। বাতাসে আদ্রতা কম থাকার কারণে ত্বক শুষ্ক হয়ে ওঠে। এ ধরনের সমস্যা দেখা দিলে যতটা সম্ভব সাবান কম ব্যবহার করতে হবে। আর সবসময়ই ভালো ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে। তাহলেই এই সমস্যা কমিয়ে আনা যাবে।” বলেন ডা. রাশেদ।

শীত মৌসুমে ত্বকে বিশেষ যত্ন খুবই প্রয়োজন। এক্ষেত্রে আরও কিছু বিষয়ে খেয়াল রাখার পরামর্শ দিলেন এই চিকিৎসক।

– শীতে ত্বকে নানান ধরনের সমস্যা হতে পারে। তাছাড়া এই আবহাওয়ায় ধুলাবালি বাতাসে বেশি ওড়ে। তাই বাইরে থেকে ঘরে ফিরে এবং রাতে ঘুমানোর আগে অবশ্যই ত্বক পরিষ্কার করতে হবে। তবে সাবান বা কেমিক্যাল যুক্ত ফেইসওয়াস এড়িয়ে ময়েশ্চারাইজারযুক্ত ডিপক্লিনজিং ফেইসওয়াস এবং ক্লিনজার ব্যবহার করা উচিত।

-প্রতিবার মুখ ও হাত-পা ধোয়ার পর অবশ্যই লোশন, ভ্যাজলিন বা ময়েশ্চারাইজার ধরনের কোনো ক্রিম লাগিয়ে নিতে হবে। এতে ত্বক শুষ্ক হওয়া থেকে রক্ষা পাবে।

– ঠান্ডা আবহাওয়ায় ত্বকে মৃত কোষের পরিমাণ বেড়ে যেতে পারে তাই নিয়ম করে ত্বক স্ক্রাব করে নিতে হবে। এতে ত্বক গভীর থেকে পরিষ্কার হবে এবং মৃত কোষ উঠে আসবে।

শীতের সময় হাত মোজা পরেন অনেকেই। তাছাড়া এই সময় অনেকের পায়ে দুর্গন্ধ হয়। হাত বা পায়ের বাজে গন্ধ থেকে বাঁচতে পটাশ অত্যন্ত কার্যকর বলে জানালেন ডা. রাশেদ।

তিনি বলেন, “হালকা গরম পানিতে কিছুটা পটাশ গুলিয়ে ওই মিশ্রণে হাত ও পা ১০ থেকে ১৫ মিনিট চুবিয়ে রাখতে হবে। এরপর ধুয়ে হাত ও পায়ে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিতে হবে। এভাবে হাত ও পায়ের দুর্গন্ধ থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।”

এছাড়াও শীতে ত্বকের সমস্যা থেকে বাঁচতে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা খুবই জরুরি।

সূত্র : বিডিনিউজ/লাইফস্টাইল

Share and Enjoy !

0Shares
0 0 0

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*