প্রচ্ছদ > তথ্যপ্রযুক্তি > প্রযুক্তি পণ্য > যা আছে গ্যালাক্সি এস৫-এ
যা আছে গ্যালাক্সি এস৫-এ

যা আছে গ্যালাক্সি এস৫-এ

কোরিয়ান ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য নির্মাতা স্যামসাং নিযে এল গ্যালাক্সি সিরিজের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন গ্যালাক্সি এস৫। কী থাকছে এতে? চলুন জেনে নেওয়া যাক।

১. ধূলা ও পানিরোধী
গ্যালাক্সি এস৫ স্মার্টফোনকে ধূলা ও পানিরোধী বলে অফিসিয়াল পেইজে জানিয়েছে স্যামসাং। এছাড়া এতে থাকছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। চকচকে প্লাস্টিকের কেসিংয়ে মোড়ানো ডিভাইসটিতে পাওয়া যাচ্ছে সাদা, কালো, নীল ও সোনালি এ ৪টি ভিন্ন রংয়ে।
অন্যান্য স্মার্টফোনের চেয়ে ওজনে হালকা গ্যালাক্সি এস৫। যেমন এইচটিসি ওয়ান এম৮ স্মার্টফোনের ওজন যেখানে ১৬০ গ্রাম সেখানে এস৫ এর ওজন ১৪৫ গ্রাম। এইচটিসির ওয়ান এম৮ এর চেয়ে ওজনে হালকা হলেও গুগলের নেক্সাস ৫ এর চেয়ে ভারী। নেক্সাস ৫ এর ওজন ১৩০ গ্রাম। এদিকে আইফোন ৫এস এর ওজন আরও কম। মাত্র ১১২ গ্রাম। তবে আইফোনের চেয়ে বড় পর্দার জিএস৫। ৫.১ ইঞ্চি অ্যামোলিড ডিসপ্লে ওয়াইড ভিউইং অ্যাঙ্গেল রয়েছে এতে। একই মান দেখা যায় আইফোন ৫এস ও এইচটিসি ওয়ান এম৮ ডিভাইসে।
পানিরোধী হওয়ায় সাঁতার কাটার সময়ও সঙ্গে রাখা যাবে জিএস৫। ৩০ মিনিট পানির নিচে থাকলেও পানি ঢুকবে না এতে। মাইক্রো ইউএসবি ক্যাবলের পোর্টে কভার সুরক্ষা দেবে পানি ও ধূলা থেকে।

২. স্পেসিফিকেশন
স্ক্রিন: ৫.১ ইঞ্চি ফুল এইচডি সুপার অ্যামোলিড ডিসপ্লে
প্রসেসর: ২.৫ গিগাহার্টজ কোয়াড-কোর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮০১
র‌্যাম: ২ জিবি
স্টোরেজ: ১৬/৩২ জিবি ডেটা ধারণ ক্ষমতা
অপারেটিং সিস্টেম: অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪‘কিটক্যাট’
ক্যামেরা: ১৬ মেগাপিক্সেল পেছনের ক্যামেরা, ২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট-ফেসিং ক্যামেরা।
কানেক্টিভিটি: এলটিই, ওয়াই-ফাই, এনএফসি, ব্লুটুথ ৪.০ উইথ বিএলই, ইউএসবি ৩.০ এবং জিপিএস
ডাইমেনশনস: ১৪২.০বাই ৭২.৫ বাই ৮.১ মিলিমিটার
ওজন: ১৪৫ গ্রাম

৩. আল্ট্রা পাওয়ার সেভিং
সারাদিন ইমেইল, ফেইসবুক, টুইটার ব্যবহার করলেও ফুলচার্জে পুরো একদিন চলবে জিএস৫। আল্ট্রা সেভিং অপশন চালু করলে ১০% চার্জ দিয়েও ২৪ ঘণ্টা মোবাইল ফোন সচল রাখা যাবে। এ সময় ডিসপ্লে রঙিন না থেকে সাদা-কালো হয়ে যাবে। এতে এক থেকে দুই দিন অনায়াসে ব্যবহার করা যাবে জিএস৫। এছাড়া ব্যাটারি পরিবর্তনের সুযোগ থাকায় প্রয়োজনে আলাদা ব্যাটারি ব্যবহার করা যাবে।

৪. ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার
আইফোন ৫ এর মতো ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার রয়েছে জিএস৫-এ। তবে, এটি লুকানো আছে হোম বাটনের নিচে। যে কারণে এটি অ্যাপলের টাচ আইডির মতো নয়। সেন্সরে হাতের আঙুল রেখে আনলক করা যাবে জিএস৫। প্রয়োজনে পিন, প্যাটার্ন অথবা ফেইস আনলক অপশনও ব্যবহার করা যাবে। ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানারের মাধ্যমে তিনটি আঙুলের ছবি স্ক্যান করে রাখা যাবে।
এদিকে স্যামসাং জানিয়েছে পেপলের মাধ্যমে কেনাকাটা করতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর কাজে লাগবে। এতে অর্থ লেনদেনে নিরাপত্তা বাড়বে। পেপলের সঙ্গে স্যামসাংয়ের চুক্তি হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে।

৫. হার্ট রেট সেন্সর ও এস হেলথ
এস হেলথ অ্যাপ্লিকেশন হচ্ছে স্যামসাংয়ের হেলথ মনিটরিং সিস্টেম। এটি ব্যবহার করে স্বাস্থ্যবিষয়ক বিভিন্ন সেবা পাওয়া যাবে। এতে হার্টরেটের অবস্থা সম্পর্কেও জানা যাবে। এছাড়া পেডোমিটার কিংবা এক্টিভিটি মনিটর অপশনও থাকছে বিল্ট-ইন সেন্সরে। সাইক্লিস্টরা সাইকেল চালানো সময় কত মাইল গতিতে সাইকেল চলছে তা-ও জানা ফিটনেস ট্র্যাকারের মাধ্যমে।

৬. স্মার্টফোনে ডিএসএলআর ক্যামেরা
গ্যালাক্সি এস৫-এ রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এছাড়া অটো ফোকাস করতে সময় লাগে ০.৩ সেকেন্ড। এতে খেলার মাঠের উত্তেজনাপূর্ণ মুহূর্তগুলোও ক্যামেরাবন্দি করা যাবে সহজেই। এছাড়া ভিউফাইন্ডারে ছবি তোলার আগেই দেখা যাবে ছবি তোলার পর তা কেমন দেখা যাবে। মজার ব্যাপার হল সিলেকটিং ফোকাস অপশন ব্যবহার করে এটি ব্যবহার করা যাবে ডিএসএলআর ক্যামেরার মতো। এছাড়া ৪কে আল্ট্রা-হাই ডেফিনেশন ভিডিও অপশন থাকায় অল্প সময়েই মাইক্রোএসডি মেমরি কার্ডের জায়গা ফুল হয়ে যাবে।

৭. ১২৮ জিবি এক্সপান্ডেবল মেমরি
গ্যালাক্সি এস৫ এ হাই ডেফিনিশন ক্যামেরায় ছবি তোলা ও ভিডিও রেকর্ড করতে থাকলে বিল্ট ইন মেমরি ফুরিয়ে যেতে বেশি সময় লাগবে না। এ জন্য ১৬ জিবি ও ৩২ জিবি বিল্টইন মেমরি ছাড়াও প্রয়োজনে ১২৮ জিবি মাইক্রোএসডি এক্সপান্ডেবল মেমরি যোগ করা যাবে। রাখা যাবে মুভি, মিউজিক আর অসংখ্য ছবি। ইউএসবি ৩.০ এর মাধ্যমে কম সময়ে মেমরিতে কোনো তথ্য রাখা ও মুছে ফেলা যাবে।

৮. ইউনিভার্সাল রিমোট
গ্যালাক্সি এস৫এ ইনফ্রা-রেড থাকায় এটি ব্যবহার করা যাবে ইউনিভার্সাল রিমোট হিসেবে। রিমোটচালিত বিভিন্ন ডিভাইস নিয়ন্ত্রণ করা যাবে হাতের স্মার্টফোন থেকে। গ্যালাক্সি এস৪এ এ টুলসটি প্রথম চালু করে স্যামসাং।

৯. দরদাম
স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৫কে সবচেয়ে দামি স্মার্টফোনের একটি বলেই জানিয়েছে ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান। গ্যালাক্সি এস৫ কিনতে গুগল নেক্সাস ৫ এর চেয়ে ২৭৯ পাউন্ড বেশি ও এইচটিসি ওয়ান এম৮ এর চেয়ে ৪৯ পাউন্ড বেশি খরচ করতে হবে। এমনকি অ্যাপলের আইফোন ৫এস এর চেয়ে ২৯ পাউন্ড বেশি খরচ করে কিনতে হবে গ্যালাক্সি এস৫।

Share and Enjoy !

0Shares
0 0

Comments

comments

Comments are closed.